জেলায় অবৈধ স্বাস্থ্যকেন্দ্র বন্ধে জেলা প্রশাসকদের সহায়তা চান স্বাস্থ্যমন্ত্রী


Md Firoj প্রকাশের সময় : মার্চ ৩, ২০২৪, ৪:১৬ অপরাহ্ন /
জেলায় অবৈধ স্বাস্থ্যকেন্দ্র বন্ধে জেলা প্রশাসকদের সহায়তা চান স্বাস্থ্যমন্ত্রী

আশ্রয় ডেস্ক

জেলায় জেলায় অবৈধ হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলো বন্ধে ও বিভিন্নধরনের অনিয়ম রোধে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের চলমান অভিযান পরিচালনায় জেলা প্রশাসকদের কাছ থেকে সর্বাত্মক সহায়তা চেয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডা সামন্ত লালসেন। আজ রোববার বিকেলে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি অডিটোরিয়াম হলে চারদিন ব্যাপী জেলা প্রশাসক সম্মেলনে তিনি এই আহবান জানান।
সামন্ত লাল সেন বলেন, ‘সারাদেশে অবৈধ স্বাস্থ্যকেন্দ্র বন্ধে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মাধ্যমে অভিযান চলছে। তবে, অনেক সময় কিছু অসাধু লোক বিভিন্ন উপায়ে এসব ক্লিনিক,ডায়াগনস্টিক সেন্টার চালু রাখতে নানা অসাধু উপায়ে চেষ্টা করে যাচ্ছে। বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকদের এগুলো লক্ষ্য রাখতে হবে এবং সর্বাত্মক সহায়তা করতে হবে।’ স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের মানুষের জন্য ভালো স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতেও আপনাদেরকে ভুমিকা রাখতে হবে। আমরা সকলে মিলে একটি ইউনিটের মত কাজ করলে, দেশের স্বাস্থ্যসেবায় অবশ্যই ইতিবাচক পরিবর্তন আনা সম্ভব হবে।
সম্মেলনে উপস্থিত স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. রোকেয়া সুলতানা বলেন, স্বাস্থ্যখাতের দিকে সবাইকে আরো গুরুত্ব দিতে হবে। হাসপাতালে বেডের তুলনায় রোগী দ্বিগুণ বা তিনগুণ হলেও হাসপাতাল থেকে কোন রোগীকে বের করে দেওয়া হয় না। চিকিৎসা দেওয়া হয়। তবে, এখন সময় এসেছে আমাদের অন্যান্য সমস্যাগুলোকে চিহ্নিত করে সেগুলো একযোগে সমাধান করা। আমরা সবাই একটি ফুটবল বা ক্রিকেট টিমের মত এক হয়ে স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন নিয়ে কাজ করলে, স্বাস্থ্যখাতে খুব বেশি সমস্যা আর থাকবে না।
সম্মেলনে ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক ঝিনাইদহ জেলায় আত্মহত্যার হার বেশির জন্য সেখানকার সরকারি হাসপাতালে মনোরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক নিয়োগের অনুরোধ জানালে, স্বাস্থ্যমন্ত্রী বিষয়টি জেনে ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দেন।
এছাড়া সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসক স্বাস্থ্যখাতে জনবলের ঘাটতি তুলে ধরলে, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো জাহাঙ্গীর আলম দেড় মাসের মধ্যে জনবলের ঘাটতি অনেকটাই দূর করা হবে বলে জানান।
মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মাহবুব হোসেনের সভাপতিত্বে সম্মেলনে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো জাহাঙ্গীর আলম, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব আজিজুর রহমান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এবিএম খুরশীদ আলম, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের মহাপরিচালক অধ্যাপক টিটু মিয়া, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক শাহান আরা বানু উপস্থিত ছিলেন।